সুরাঃ অনুভুতি

সুরাঃ অনুভুতি
(চোদনানুভুতি মুলক সুরা, মনি জামানের উপর নাজিলকৃত )
আয়াত সংখাঃ ১৭

১. হে নবী আপনি বলুন, তোদের অনুভুতির চৌদ্দ গুষ্টির কপালে ঝাড়ু মারি।
২. কসম ঝাড়ু এবং হাছোনের যা বর্ষিত হয় মুমিনের কপালে।
৩. ওরা প্রতারক ঠোঁট কাটা শয়তান।
৪. স্মরন করুন সেদিনের কথা যেদিন আপনার পালন কর্তা বাঙালী মুসলিমদের প্রশ্ন করেছিল কে বা কারা তোদের অনুভুতি জাগালো।
৫. তোদের কোন ধর্ম তোদেরকে করেছে হিংস্র, অমানবিক রক্ত চোষা জানোয়ার।
৬. কোন বাপের ধর্ম তোদেরকে করেছে অনুভুতির হায়েনা
৭. সামান্য ঠুনকো কথায় ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগে আর এই আঘাতের প্রতিক্রিয়া হয় ভয়াবহ।
৮. অাপনি বাঙালী মুসলিমকে বলুন যে তোরা লোভী হিংস্র অমানবিক শয়তান।
৯. অাপনি আল্লাকে ছাড়া কাউকে ভয় করবেন না।
১০. হে আমার বান্দারা তোমরা সবাই মিলে ওদের অনুভুতির পাছায় বাঁশ দাও।
১১. যদি বাঁশ না দাও, যদি ওদের অনুভুতি হত্যা না কারো তবে মনে রেখ আল্লাহ মহাজ্ঞানী ভন্ড।
১২. আপনি মুসলিম অনুভুতির সন্ত্রাসীদের সাবধান করুন। নিশ্চয় আল্লায় অনুভুতির গুষ্টি মারে।।
১৩. আপনি লাথি মারুন ওদের মুখে যারা আল্লা ফাকের বিরুদ্বে অনুভুতির কথা বলে ঘরে আগুন দেয়।
১৪. নিশ্চয়ই আপনি নোংরা অনুভুতি কে ঘৃনা করুন।
১৫. আপনি সবাইকে বলুন বাঙালী মুসলিমের মুখে থুতু মেরে অনুভুতির কপালে আগুন জ্বালাতে।
১৬. নিশ্চয়ই আপনি অনুভুতিহীনদের দলে।
১৭. অনুভুতিহীনদের সুসংবাদ দিন শুভ দিনের।

সানে নুজুল : ইবনে সৌদী কুত্তা কিতাবের ” অনুভুতির আঘাত ” নামক অধ্যায়ে, হযরত মোহাম্মদ পকি জারজ ( খাঃ) বর্ননা করেন মহান আল্লাহ ফাক মারা যাবার রাতেই মুসলিমদের নোংরা মনে কয়েকটি রুহানী জগতের জিনিস উপহার স্বরুপ রেখে যান। যুগ যুগ ধরে অমুসলিমদেরকে জন্মভুমি দেশ থেকে তাড়ানোর জন্য সেই অনুভুতির ব্যাপক প্রচারের প্রেক্ষাপটে এই সুরা নাজিল করেন।

সংক্ষিপ্ত তাফসির : –
বঙ্গ নরকল্যান্ডের খুলনা নামক আসমানের চোদানী মাওলানা হামিদী যৌনরুগীর বর্ননায় আমারা অনুভুতির ব্যাবহার দেখতে পাই তার ” কিতাবুল উস্কানী ” গ্রন্থে।
তিনি বর্ননা করেন আল্লায় যক্ষা রোগে মারা যান এবং তার যক্ষা রোগের সাথে অনুভুতির সংযোগ পাওয়া যায়।
প্রতিটি বাঙালী মুসলিম এই অনুভুতির আমল করেন –
নিচে তার অনুভুতির সংক্ষিপ্ত বর্ননা দেওয়া হলো।
১. নুনানুভুতি ( অনেক মুহাদ্দীস গন এটিকে সুন্নাতি ঈমানী দন্ডানুভুতি বলেছেন)
২. ধর্মানুভুতি ( সদা জাগ্রত থাকা সুড়সুড়ি)
৩. যৌনানুভুতি ( এটি খুব ব্যাপক আকারে মাদ্রাসায় পাওয়া যায়! কাফেরদের কন্ডম প্রস্তত কারী প্রতিষ্টান ” হালাল কনডুমিন” চেষ্টা করেছে বন্ধ করার কিন্তু অনুভুতি প্রবল হওয়ায় তা সুন্নতি এইডস রোগে পরিনত হয়ে জাহান্নামের নেকীর দরজা খুলে দিচ্ছে) ।
৪. ছ্যাচরানুভুতি ( অনেকে এটাকে বেহায়াদের আমল বলছেন কিছু কিছু পাকি কওমি এবং তেতুল ওলামাগন দ্বিমত পোষন করেছেন)
৫. পোড়ানুভুতি ( অমুসলিমদের ঘড় বাড়ি পুড়তে থাকা অবস্থায় যে অনুভুতি জাগ্রত হয়)
৬. মিথ্যানুভুতি ( কোন ফাসিকি আমলকে ধারন করার পর অশ্বীকার করাকে বোঝানো হয়)
৭. ভানানুভুতি ( বেশীর ভাগ ফতোয়াবিদ গন এটাকে হযরত পিনাকী (খাঃ ছাওঃ) এর অনুভুতি বলতেই বেশী সাচ্ছন্ধ বোধ করেন)
৮. ত্যানানুভুতি ( ঘটনা ঘটার পর তাকে হালাল করার জন্য মুখোশধারী মুহাদ্দীসগন যে বর্ননা দেন তাকে ত্যানানুভতি বলে)
৯. হামলানুভুতি ( হযরত বাঙালী ছাগু সাহাবীগন যখন আল্লা থুঃ আকবার বলে বয়ানী বেদাতী হামলা করেন তখন এটি বেশী জাগ্রত হয়)
১০. ফেজবুকানুভুতি ( হয়রত জোকার ( ফেঃ) সেয়ার, জররা লাইক এবং হামদা কমেন্টে যে অনুভুতি আসে)

আল্লাপাক যে বাঁশের দিকে ঈঙ্গীত করেছেন তা সবাইকে আমাল করতে হবে। এই বাঁশ দিলেই আমরা সমাজ থেকে অনুভুতির জ্বর সাড়াতে সক্ষম হবো। আল্লাহ আমাদের সবাইকে মুসলিমের অনুভুতিতে বাঁশ দেওয়ার নেক আমল দান করুন। আসুন আমরা সবাই মিলে অনুভুতির পাছায় বাঁশ দেই। আমিন।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.